বুধবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২২

প্রতিবন্ধকতা যাদের হার মানাতে পারিনি।

 
প্রতিবন্ধকতা যাদের হার মানাতে পারিনি।

প্রতিবন্ধকতা মানুষের জীবনকে নানান সমস্যায় জর্জরিত করে। বিশেষ করে যারা প্রতিবন্ধি তাদের জীবন আর ৫ জন স্বাভাবিক মানুষের মত না। তাই বলে কি মানুষের জীবন থেমে থাকে। আজকের এই ভিডিও তে এমন কিছু প্রতিবন্ধিদের তুলে ধরব যাদের শারীরিক প্রতিবন্ধকতা তাদের জীবনকে হার মানাতে পারি নি। 
 
দুই পায়ে জন্মগত সমস্যায় দাড়াতে পারেন না জামাল্পুরের মেলানদহের নয়ানগর গ্রামের নুর ইসলাম। বছর কয়েক আগে নয়ানগর ক্রসিঙে ট্রেনের ধাক্কায় ইজি বাইকের ৭ যাত্রীর মৃত্যু নাড়া দেই তাকে। এরপর থেকেই স্বেচ্ছায় অরক্ষিত ক্রসিংটি পাহারা দেন বিনা স্বার্থে। নিজেই  বানিয়েছেন বাঁশের বেরিকেট। বাঁশি আর লাল সবুজের পতাকা নিয়ে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বসে থাকে রেল লাইনের পাশে। ট্রেনের শব্দ পেলেই রশি টেনে নামিয়ে দেন বাঁশের বেরিকেট। ৪ বছর ধরে বিনা স্বার্থে কাজটি তিনি এখনও করে যাচ্ছেন। 

দুই হাত নেই অথচ থেমে নেই তার জীবন। বলছি ভারতের ফতেহাবাদ জেলার মদন লালের কথা। জীবিকার তাগিদে পা দিয়ে  নিখুঁতভাবে সেলাই করেন জামা কাপড়। তাকে একজন দক্ষ দর্জিও বলা হয়। পা দিয়েই তিনি জামাকাপড় মাপ নেন। বেচে থেকে লড়াই করার উদ্দ্যাম সাহসিকতা তার শারীরিক অক্ষমতাকেও হার মানিয়েছে।  

পা দিয়েই সংসারের সকল কাজ কর্ম করে যাচ্ছেন গাইবান্ধার সাঘাটার আয়েশা আক্তার। ১৯৯৩ সালে গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার পূর্ব কচুয়ায় এক গরীব পরিবারে জন্মগ্রহন করে আয়েশা আক্তার।   গাইবান্ধা সরকারি কলেজে মাস্টার্সে পরছেন আয়েশা আক্তার। পা দিয়েই তার স্বপ্ন জয় করার ইচ্ছা। পেতে চান একটি সরকারি চাকুরী। 

এই ভিডিও টি দেখার পর আপনারা যারা এত দিন নিজেকে অসহায় মনে করতেন  হয়তো আজ থেকে নিজেকে আর অসহায় মনে হবে না। এরপরও যদি নিজেকে এখনও অসহায় মনে হয় তাহলে মনে করবো আপনি সবচেয়ে বড় প্রতিবন্ধি। জীবনে অনেক বাঁধা বিপত্তি দুঃখ কষ্ট আসবে তাই বলে থেমে না থেকে সবকিছুকেই পেছনে ফেলে সামনের দিকে অগ্রসর হতে হবে। প্রতিবন্ধকতা থাকা সত্ত্বেও তারা যদি পারে তাহলে আপনি পারবেন না একথাটি বলার আগে আপনার বেচে থেকেও আরও একবার মৃত্যু হয়ে গেল।  প্রতিবন্ধদের নিয়ে যদি সেকেন্ড পার্ট ভিডিও পেতে চান তাহলে চ্যানেল্টি সাবক্রাইব করে কমেন্ট করে যান।   

ভিডিও টি এখান থেকে নিতে পারেন। 

শেয়ার করুন

Author:

আমি একজন অতি সামান্য মানুষ। পেশায় একজন লেখক,ব্লগার এবং ইউটিউবার। লেখালেখি করতে খুব ভালো লাগে। আমার এই সামান্য প্রয়াসের মাধ্যমে মানুষের কিছু শেখাতে পারা ও বিনোদন দেওয়ার মাধ্যমে আনন্দ খুঁজে পায়।

0 coment rios: