Husband and Wife divorce for bathing twice in morning.

সকালে দুইবার গোসলের সন্দেহে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ডিভোর্স।

আপনার কাছে বিষয়টি অদ্ভুত মনে হচ্ছে কারণ সকালে দুইবার, তিনবার, চারবার গোসল করার সাথে এখানে ডিভোর্সের সম্পর্ক কি? যারা বাচ্চা তারা এই বিষয়টি হয়তবা বুঝবেন না। কিন্তু যারা ঝানু মাল তারা এতক্ষণে বিষয়টি বুঝে গেছেন। তবে ঘটনাটি একেবারেই সত্য। আমি আমার ব্লগে এই ধরনের পোস্ট সহজে লিখি না । কারণ এই সকল বিষয় নিয়ে আমার কোন ইন্টারেস্ট নেই। কিন্তু এই ঘটনাটি যার জীবনে ঘটেছে সে আমার খুব পরিচিত। তার রিকুয়েস্টের কারণে আজকের এই পোস্টটি লিখতে বসলাম। তিনি মনে করেন এই পোস্টটি পড়ে অনেকেই আগে থেকে সচেতন হতে পারবেন। যার ফলে তার মত যেন মানুষ কষ্ট না পায়। 

মেয়েটির নাম বীথি এবং ছেলেটির নাম ইমরান। তাদের দুইজনের ৯ বছরের সংসার।তাদের ১ টি ১২ বছরের কন্যা সন্তান রয়েছে। সে এখন ক্লাস সিক্স এ পড়ে। মেয়েটি নানীর বাড়িতে থাকে। বীথি এবং ইমরান চাকরির কারণে গাজীপুর থাকে। কিন্তু সকাল বেলা দুইবার গোসল করার কেন্দ্র করেই তাদের মধ্যে ডিভোর্স হয়। আসুন ভঙ্গিতা না করে বিষয়টি আপনাদের মাঝে খোলসা করি। বিস্তারিত পড়ুন...........

Husband and Wife divorce for bathing twice in morning.

Husband and Wife divorce for bathing twice in morning.

বীথি একজন চাকরিজীবী সে একটি ভালো প্রতিষ্ঠানে সরকারি চাকরি করে । আর তার স্বামী ইমরান মুদির দোকানের পণ্য বাড়িতে বাড়িতে বিক্রি করে। এইটা তার পেশা। বীথি সরকারি চাকরি করার  কারণে সরকারি কোয়ার্টারে থাকে। স্বামী স্ত্রীর বেশ সুখের সংসার এক কথায় তাই বলা চলে। কিন্তু বীথি প্রায় একটা জিনিস লক্ষ্য করতে থাকে তাদের মধ্যে রাত্রে প্রেম প্রণয় হওয়ার পর তারা দুজনেই রীতিমত সকালে গোসল করেন। কিন্তু তার স্বামী সকাল ভোরেই বাড়িতে বাড়িতে মুদির পণ্য দিতে চলে যায়। দুই ঘণ্টা পর বাড়িতে ফিরে এসেই আবার সে গোসল করে ততক্ষণে বীথির অফিসে যাওয়ার সময় হয়ে আসে। একদিন নয়, দুই দিন নয়, প্রায় দিন গুলোতে বীথি এমন কাণ্ড দেখতে পায়। যে ব্যক্তি ২ ঘণ্টা আগে গোসল করে গেল তার আবার গোসলের প্রয়োজন কেন।  একদিন দুইদিন হতে পারে গরমের কারণে তাই বলে প্রায়  দিন গুলোতে এমন হওয়ার কথা না। এর পেছনে তো কোন একটা রহস্য আছে। 

এই বিষয় নিয়ে বীথি ও তার স্বামীর মাঝে একদিন  সকালে বিশাল ঝগড়া হয়। বীথির স্বামী ইমরান তাকে প্রচণ্ড মারধর করে । এমনকি মেরে তার এক হাত ভেঙ্গে দেই। বীথিকে মেরে ধরে ইমরান বাড়ি থেকে চলে যায়। বীথি কোন উপায় না পেয়ে অফিস থেকে কয়েকদিনের ছুটি নিয়ে বাড়িতে চলে যায়। 
কিন্তু কিছুদিন পরে বীথি জানতে পারে ঐ এলাকাতে ইমরান আরেকটি নারীকে বিয়ে করেছে। 
বীথির স্বামী বাড়িতে বাড়িতে মুদির পণ্য দিতে যেত সেখান থেকেই ঐ নারীর সাথে পরিচয় হয়। যার ফলে তাদের মধ্যে প্রেম প্রণয় হতে থাকে। বীথি আরও বলেন আমার স্বামী খারাপ স্বভাবের এর আগেও সে বেশ কয়েকজন নারীর সাথে প্রেম প্রণয় করেছেন। প্রেম প্রণয় বলতে আমি কি বোঝাতে চেয়েছি আপনারা হয়তো বুঝতে পেরেছেন। কারণ আমি খারাপ ভাষা ব্যবহার করতে পারব না। এর আগেই আমি বলেছি এই ধরণের পোস্ট আমি লিখি না। 


তারপর বীথি ভেবেচিন্তে তার স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে দিল। বর্তমানে বীথি আবারো তার চাকরিতে ফিরে এসেছে। সে এখন নতুন জীবনের সাথে যুদ্ধ করছে।  ৯ বছরের সংসার এক নিমিষেয় শেষ হয়ে গেল শুধুমাত্র গোসল কে কেন্দ্র করে। আসলে এই সকল ছোটখাটো বিষয়ের মাঝে বড় কিছু লুকিয়ে থাকে। তাই স্বামী অথবা স্ত্রীর মাঝে এই ধরণের কোন বিষয় আপনি দেখতে পান অথবা অন্য কোন বিষয় যা আপনার কাছে সন্দেহজনক মনে হচ্ছে তাহলে আগে থেকেই পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।
পোস্টটি আপনাদের বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে সচেতন করে তুলুন। আপনার এই বিষয়ে কোন মন্তব্য থাকলে অবশ্যই আমাদেরকে জানাতে ভুলবেন না। 

No comments

Powered by Blogger.