বিয়ে ও বিচ্ছেদ নিয়ে যতসব অদ্ভুত আইন।

বিয়ে ও বিচ্ছেদ নিয়ে সারা পৃথিবী জুড়ে রয়েছে নানা বিচিত্র নিয়মকানুন। অনেকেরই হয়তো জানা নেই সেসব নিয়ম-কানুন ও আইনের কথা। চলুন আজকে জেনে নেয়া যাক বিয়ে ও বিচ্ছেদ নিয়ে যতসব অদ্ভুত নিয়ম-কানুন ও আইনের কথা। 

১। মৃত মানুষকে বিয়ে করার অনুমতিঃ 

বিয়ে ও বিচ্ছেদ নিয়ে যতসব অদ্ভুত আইন2।

 ফ্রান্সে রয়েছে বিয়ে বিষয়ে একটি অদ্ভুত আইন। আইনটি হলো- রাষ্ট্রপতির অনুমতি সাপেক্ষে মৃত মানুষকে আয়োজন করে বিয়ে করা যাবে। তবে রাষ্ট্রপতি থেকে অনুমতি নিতে প্রয়োজন পড়বে কিছু প্রমাণাদির।
মৃত মানুষটি জীবদ্দশায় ঐ পুরুষ বা ঐ নারীকে ভালোবাসত কিনা বা তাদের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল কিনা, এসব তথ্যাদি পেশ করতে হয় রাষ্ট্রপতির কাছে।

২। এক বছরের খোরপোষ দিলেই দিতে পারবেন ডিভোর্সঃ 

আমেরিকার টেনেসি প্রদেশে বিবাহ-বিচ্ছেদের জন্য রয়েছে খোরপোষ বিষয়ক একটি আইন। আইনটি হলো- স্ত্রীর এক বছর চলে যাবে এমন পরিমাণ খাবারের জোগান দিতে পারলে একজন স্বামী যে কোনো মুহূর্তে আর কোনো কারণ না দেখিয়েই স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদ ঘটাতে পারেন।

খাবারের তালিকায় রয়েছে- শুকনো শস্যদানা, শুকনো ফলমূল এবং মাংস। আর পরিধানের জন্য রেশমি বস্ত্র এবং উল।

৩। স্ত্রীর জন্মদিন ভুলে গেলে শাস্তিঃ 

ছোট্ট দ্বীপরাষ্ট্র ওশেনিয়ার সামোয়া। সেখানে রয়েছে বিয়ে বিষয়ক অদ্ভুত এক আইন। জন্মদিনকে বেশ গুরুত্ব দিয়ে থাকে দেশটি।সেখানে কোনো স্বামী যদি তার স্ত্রীর জন্মদিন ভুলে যায় ও সময়মতো শুভেচ্ছা না জানায়, তা হলে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে সেই স্ত্রী তার ভুলোমনা স্বামীকে ডিভোর্স দেয়ার অধিকার পেয়ে যান। কিন্তু আইনটি স্ত্রীর বেলায় প্রযোজ্য নয়।

৪। রোববার স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া করলেই আইনি ব্যবস্থাঃ  

যুক্তরাষ্ট্রের কলোরাডোয় রয়েছে একটি আইন। রোববারে স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া করতে একেবারেই নিষেধ। অন্যদিন গুলোতে যত খুশি ঝগড়া করুক সমস্যা নেই।রোববার স্ত্রীর সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করলেই বিপদ। শুধু বিচ্ছেদই নয় স্বামীকে কারাগারেও পাঠাতে পারেন স্ত্রী।

৫। বিয়ের পূর্বে ঘোষণা দেওয়া বাধ্যতামূলকঃ 

ইচ্ছেমতো দিনে বিয়ে করা যায়না মোনাকোয়। দেশটির নিয়মানুযায়ী, দুটি রোববারসহ মোট দশ দিন হাতে রেখে বিয়ের ঘোষণা দিতে হবে। তারপরেই বিয়ে করতে পারবেন হবু স্বামী-স্ত্রী। তা না করলে সে বিয়ে বৈধতা দেওয়া হয় না সেখানে।

৬। সন্তান ধারণে বিধিনিষেধঃ

যুক্তরাষ্ট্রের ২৬ প্রদেশে আপন চাচাতো ভাইবোনদের মধ্যে বিয়ে নিয়ে রয়েছে একটি আইন। নিকটাত্মীয় বা রক্তের সম্পর্কের মধ্য বিয়ে হলে সন্তান হতে পারে প্রতিবন্ধী বা শারীরিকভাবে অপরিপক্ব।এমন বিয়েতে নিরুৎসাহিত করলেও বাধা দেয় না প্রশাসন। তারা বিয়ে করতে পারেন কিন্তু সন্তান নেয়া যাবে না। পরবর্তী প্রজন্ম যেন জিনগত ত্রুটি ও শারীরিক সমস্যা নিয়ে না জন্মায় সে ধারণা থেকেই সন্তান ধারণের জন্য বিধিনিষেধের এমন অদ্ভুত আইন রয়েছে দেশটির সেসব প্রদেশে।

আরও বিস্তারিত জানতে নিচের ভিডিও টি দেখুনঃ 

No comments

Powered by Blogger.