Saturday, September 7, 2019

প্রতিমাসে লেখালেখি করে আয় করুন ২০,০০০ টাকা কোন অভিজ্ঞতা লাগবে না।

প্রতিমাসে লেখালেখি করে আয় করুন ২০,০০০ টাকা কোন অভিজ্ঞতা লাগবে না। 

প্রতিমাসে লেখালেখি করে আয় করুন ২০,০০০ টাকা কোন অভিজ্ঞতা লাগবে না।

শুধুমাত্র লেখালেখি করেই প্রতিমাসে আয় করতে পারবেন ২০,০০০ টাকা কোন অভিজ্ঞতার প্রয়োজন নেই। আর যদি ইন্টারনেট সম্পর্কে মোটামুটি ধারণা থাকে তাহলে তো কথায় নেই  আপনি আরও বেশি ইনকাম করতে পারবেন। আপনি হয়তো মনে মনে ভাবছেন শুধুমাত্র লেখালেখি করে যদি এত টাকা আয় করা যেত তাহলে লেখাপড়া আর চাকরি বাকরি করার দরকার নেই। হ্যাঁ কথাটা পুরোপুরি সত্য। কিন্তু আমি কোন গাঁজাখুরি গল্প করছি না। আমি নিজেও ২০,০০০ হাজারের উপরে আয় করি। এখন মনে মনে ভাবছেন আপনি সত্য নাকি মিথ্যা বলছেন এটা আমরা বুঝবো কেমনে? হ্যাঁ এই কথাটাও সত্য। আপনার কাছে প্রয়োজন হলে লাইভ পেমেন্ট প্রুভ দেখাবো। আর যারা দ্বিধাদন্দে ভুগছেন তারা আমার ওয়েবসাইটের ই-মেইলের মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারেন।

এখন আর বয়ান মারবো না কাজের কথায় আসি। কারণ যার টাকার প্রয়োজন তার এতকিছু বলার প্রয়োজন পড়ে না। সে এমনিতেই এমন একটি সুযোগের অপেক্ষায় আছে। মাথায় যদি একটু জ্ঞান আর পুষ্টি থাকে তাহলে ইন্টারনেট থেকে খুব সহজেই আয় করা যায়।
কিন্তু অনেকেই এই কৌশলগুলি জানে না। আর যারা জানে তারা হল ঝানুমাল তারাও কাউকে ইনকাম করার পথ দেখায় না। কারণ একা একা খেতে চায়। ছোট্ট একটা গল্প বলবো, আমার এক ক্লজ বন্ধু সে আউট সোর্সিং করে প্রতি মাসে ১ লক্ষ থেকে ২ লক্ষ টাকা ইনকাম করে। তার কথা শুনেই আমি খুব কষ্ট করে একটা ল্যাপটপ কিনি। তারপর তার পেছনে পেছনে ৬ মাস বেকার ঘুরে ঘুরে কিছুই শিখতে পারিনি। সে তার অবসর সময়ে আড্ডা দেওয়ার জন্য আমাকে ব্যবহার করেছে। এরপর থেকে আমি আর তার কাছে কোনদিন যায় না।

আমি যা কিছু শিখেছি সব ইউটিউব ভিডিও দেখে দেখে। এখন আমার ১ টা জনপ্রিয় ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে সাথে দুইটা ওয়েবসাইট রয়েছে। এখন যে ওয়েবসাইটে আপনারা রয়েছেন এটিও আমার নিজের। জীবনে অনেক কষ্ট করেছি তাই আমার কারণে যদি কোন অভাবী অসহায় ভাই ও বোনদের উপকার করতে পারি তাহলে আমার জীবন সার্থক হবে।

চলুন এবার কিভাবে প্রতিমাসে ২০,০০০ হাজার বা তারও বেশি আয় করতে পারবেন সেই প্রসেস গুলো আপনাদেরকে জানাবো। আশা করি এই আর্টিকেল টি মনোযোগ সহকারে পড়বেন। একবার যদি মনোযোগ সহকারে এই পোস্ট টি সম্পূর্ণ পড়েন আমি বিশ্বাস করি আপনি যত বড়ই হাবলা বা বোকা হন না কেন অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন ইনশাল্লাহ।




আয় করার জন্য কি কি প্রয়োজনঃ
  1. আপনার ১ টি এন্ড্রয়েড ফোন পিসি অথবা ল্যাপটপ থাকতে হবে। তবে ল্যাপটপ বা পিসি থাকলে বেশি ভালো হয়।
  2. অবশ্যই ইন্টারনেট কানেকশন থাকতে হবে। ওয়াইফাই ব্রড ব্যান্ড কানেকশন থাকলে আরও বেশি ভালো হয়। তবে আপনারা সিমের নেট ব্যবহার করতে পারেন। এখন কম টাকায় ইন্টারনেট প্যাকেজ কিনতে পাওয়া যায়। 
  3. অবশ্যই টাইপিং দক্ষতা থাকতে হবে। তবে প্রথম প্রথম এত বেশি দক্ষ না হলেও চলবে। কারণ কাজ করতে করতে আপনার টাইপিং গতি দিগুনের দিগুন হয়ে যাবে। 
কিসের মাধ্যমে আয় করবেন? 
এখন আপনারা মনে মনে  ভাবছেন  লেখালেখি তো করবো ঠিক আছে কিন্তু কোন ওয়েবসাইট বা কিসের মাধ্যমে আয় টা হবে? আমি এখন সেই কথায় বলবো। সেটি হল ব্লগে লেখালেখি করে বা ব্লগিং করে। ব্লগিং করে আপনি সারা জীবনের জন্য ইনকাম করতে পারবেন। এখন এই কথা শুনে আপনার মাথার টনক নড়ে গেছে। আপনি ভাবছেন এইটা তো অনেক কঠিন কাজ। না ভাই মোটেই কঠিন কাজ না তার জন্য আমি তো আছি সবকিছু সহজ করে দেব। আপনারা কিভাবে ফ্রিতে একটা ব্লগার সাইট তৈরি করবেন এবং কিভাবে ব্লগে লেখালেখি পাবলিশ করবেন তার সম্পূর্ণ ৮ টি ভিডিও পেতে এখানে ক্লিক করুন।

ব্লগ থেকে কি কি উপায়ে আয় করা যায়?

ব্লগ থেকে বিভিন্ন উপায়ে আয় করা যায়। কিন্তু আমি আজকে দুইটি কার্যকরী উপায় নিয়ে আলোচনা করবো।
  1. গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে
  2. বিভিন্ন এড কোম্পানির এড ব্লগে বসিয়ে।

এখন এই দুইটি উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবঃ

গুগল এডসেন্সের মাধ্যমেঃ 
গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে আয় অধিক কার্যকরী। তবে গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করতে হলে বেশ কিছু শর্ত পুরন করতে হয়। তবে আপনারা এই প্রসেসে প্রথম চেষ্টা করবেন। যদি গুগল এডসেন্স একবার পেয়ে যান তাহলে সারাজীবন আয় করতে পারবেন। যদি গুগল এডসেন্স না পান তাহলে ২ নং উপায়ে আয় করা অনেক অনেক সহজ। সেই বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো। তার আগে আমরা জানবোঃ


  1. গুগল এডসেন্স কি?
  2. গুগল এডসেন্স থেকে কিভাবে আয় হয়?
  3. গুগল এডসেন্স পাওয়ার শর্তগুলো কি কি? 
  4. গুগল এডসেন্সের টাকা কিভাবে হাতে পাবো? 

গুগল এডসেন্স কি? 

গুগল এডসেন্স হলো গুগল এর মালিকানাধীন বিশ্বের সবচেয়ে বহুল জনপ্রিয় একটি এডভারটাইজিং প্রক্রিয়া।যার মাধ্যমে একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইটে অথবা ইউটিউবে গুগলের বিজ্ঞাপন দিয়ে টাকা উপার্জন করা যায়। চাইলে আপনিও খুব সহজে আপনার ইউটিউব বা ব্লগ সাইটে এভাবে গুগলের বিজ্ঞাপন দিয়ে টাকা উপার্জন করতে পারেন।

গুগল এডসেন্স থেকে কিভাবে আয় হয়?

ভিন্ন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান তাদের সেবা ও পণ্যের প্রচার এবং বিক্রয়ের জন্য  গুগল এডসেন্সের  নিকট চুক্তিবদ্ধ করে। যে কোনো ব্যক্তি প্রতিষ্ঠান বা কোম্পানি তাদের পণ্য বা সেবা বিক্রয় ও প্রচারের জন্য গুগল এডসেন্সকে অর্থ প্রদান করে থাকে। আর গুগল এডসেন্স সেই পণ্য বিভিন্ন ওয়েবসাইট ও ইউটিউবের মাধ্যমে প্রচার করে থাকে, এই প্রচার বাবদ গুগল এডসেন্স কর্তৃপক্ষ সেই অর্থের একটি অংশ  সেই ইউটিউব ও ওয়েবসাইটের মালিক কে প্রদান করেন। গুগল এডসেন্স বিভিন্ন ওয়েবসাইট, ভিডিও, মোবাইল অ্যাপ এবং ইউটিউব এর মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচার করে থাকে। মূলত তার মাধ্যমেই যাদের ইউটিউব বা ব্লগ ওয়েবসাইট আছে তারা গুগল এডসেন্স থেকে আয় করতে পারে।

একবার যদি গুগল এডসেন্স এপ্রুভ হয় তার মানে লাইফটাইম উপার্জন শুরু হওয়া । যতদিন গুগল থাকবে ততদিন আপনার ইনকাম হতে থাকবে। অনেকেই গুগল এডসেন্সকে সোনার হরিণ বলে মনে করেন। কারণ সবাই মনে করে এটা পাওয়া খুবই কঠিন। আসলে এমন টা নয়, গুগল এডসেন্স এর সকল নিয়ম সঠিকভাবে মেনে আবেদন করলে অবশ্যই এপ্রুভ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। কাজেই কিভাবে গুগল এডসেন্স এপ্রুভ করবেন তার বিস্তারিত আলোচনা নিচে করা হবে।

গুগল এডসেন্স পাওয়ার শর্তগুলো কি কি? 


গুগল এডসেন্স এপরুভ না হওয়ার কিছু বেসিক কারণ থাকে।তাই আপনারা যারা নতুন আছেন তারা যেন প্রথমবার এপ্লাই করেই গুগল এডসেন্স এপরুপ করাতে পারেন সেই সর্ম্পকেই আমরার আজকের এই পোষ্ট।গুগল এডসেন্স এপরুপ করানোর জন্য যা যা থাকতে হবে আপনার ব্লগে বা ওয়েবসাইটে সেগুলো নিচে তুলে ধরা হলোঃ

  • অবশ্যই আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে ৩০-৪০ ভালোমানের আর্টিকেল থাকতে হবে। 
  • অন্য কোন কোম্পানির এড ব্লগে সেটিং না করলেই ভালো হয় বরং করবেন না। 
  • পপ-আপ উইন্ডো যেমনঃ ফেসবুক লাইক বক্স থাকা যাবে না।
  •  অন্যের আর্টিকেল চুরি করে আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে পাবলিশ করবেন না। 
  • গুগল এডসেন্সের কপিরাইট আইন ভঙ্গ করে এমন কিছু পোস্ট করা যাবে না। 
  • এডাল্ট, হ্যাকিং,অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড কোন জাতি বা গোষ্ঠীকে নিয়ে ব্যাঙ্গ করা হয়েছে এমন কোন কন্টেন্ট থাকা যাবে না। 
  • সেক্সুয়াল বা দুঃখজনক ঘটনা পরিহার করুন এমন কোন কন্টেন্ট লিখবেন না যার ফলে মানুষ খারাপের দিকে প্রভাবিত হয়। 
  • টপ লেভেল ডোমেইন হতে হবে। অর্থাৎ সাব-ডোমেইন হলে একাউন্ট এপ্রুভ হবে না। (তবে ব্লগস্পট এর বিষয়টা আলাদা)
  • পোষ্টগুলোর সাইজ কমপক্ষে ৫০০ ওয়ার্ডের বেশি হলে ভাল হয়। তবে ১০০০ এর বেশি করতে পারলে আরো ভালো।সবসময় চেষ্টা করবেন অনেক বড় আর্টিকেল পোস্ট করতে।
  • আপনার সাইটের ডোমেন এর বয়স এক মাসের বেশি হতে হবে।
  • কমপক্ষে ৬টি পেজ থাকতে হবে। (তা হলো: About Us,Contact Us,Privacy Policy,sitemap,Disclaimer,Terms & Conditions) এই পেজগুলো ছাড়া আপনার ব্লগে এডসেন্স এপরুপ না করার সম্ভাবনা বেশি। 
  • একটি ভালো ও সুন্দর প্রিমিয়ার থিম হলে ভালো হয় । ফ্রি থিম ব্যবহার করার ক্ষেত্রে ভালো মানের আর্টিকেল পাবলিশ করে  গুগল এডসেন্স এর জন্য এপ্লাই করবেন ।
  • একটি মাস্টার ডোমেইন (যেমন: .com, .net, .in, .bd, .info, .org )কিনলে সবচেয়ে ভালো হয়।
  • কখনেই অন্যের ইমেজ কপি করবেন না। তবে হ্যা ইন্টারনেটে অনেক ওয়েবসাইট আছে যেখানে অনেক সুন্দর সুন্দর ইমেজ ফ্রিতে পাওয়া যায় সেগুলো ফ্রিতে ডাউনলোড করতে পারেন অথবা ফটোশপ দিয়ে ভালো করে এডিটিং করে নিবেন। 
  • উল্টা পাল্টা অশালীন  অথবা সমালোচনার মুখে পড়তে হয় এমন কন্টেন্ট আপনার ব্লগে পাবলিশ করবেন না।

গুগল এডসেন্সের টাকা কিভাবে হাতে পাবো? 


এখন সবার মাথায় একটা কথায় ঘুরপাক খাচ্ছে সেটি হলো গুগল এডসেন্সের টাকা হাতে পাবো কিভাবে? এই চিন্তাটা হওয়াটাই স্বাভাবিক কেননা এত পরিশ্রম করে যদি টাকা হাতেই না পায় তাহলে সব পরিশ্রম বৃথা হয়ে যাবে।যখন আপনার ওয়েবসাইট অথবা ইউটিউব থেকে গুগল এডসেন্সের মধ্যে ১০ ডলার জমা হবে। তখন অটোমেটিক আপনার ওয়েবসাইট অথবা ইউটিউবের ইমেইলের ঠিকানা অনুযায়ী গুগল এডসেন্স থেকে ৪ ডিজিটের একটি পিন কোড পোস্ট অফিসে প্রেরণ করবে।  সেই পিন কোডটি নিয়ে আপনার গুগল এডসেন্স ভেরিফাইড করতে হবে।তারপর থেকে আর কোন চিন্তা নেই। আপনারা বুঝতে না পারলে ইউটিউবে সার্চ করে ভিডিও দেখে নিবেন। আপনারা ইউটিউবে এই লিখে সার্চ করবেন কিভাবে গুগল এডসেন্স একাউন্ট পিন ভেরিফিকেশন করব।

গুগল এডসেন্স ইউটিউব,ওয়েবসাইট বা ব্লগারদেরকে দুই ভাবে টাকা দেয়। ১. ব্যাংক ট্রান্সফার এবং ২. ব্যাঙ্ক চেক এর মাধ্যমে। আমাদের দেশে ব্যাংক ট্রান্সফারের মাধ্যমে টাকা নেওয়া সবচেয়ে বেশি সুবিধা। আর ব্যাংক চেকের মাধ্যমে টাকা আসতে দেরি হয়। তাই আপনারা গুগল এডসেন্সের মধ্যে লোকাল ব্যাংক এড করে নিবেন। আমার মতে ইসলামি ব্যাংক অথবা ডাজ বাংলা ব্যাংক সবচেয়ে উত্তম। আপনারা চাইলে অন্যকোন ব্যাংক এড করে নিতে পারেন। আপনারা কিভাবে লোকাল ব্যাংক এড করবেন তা ইউটিউবে ভিডিও সার্চ করলে হাজার হাজার ভিডিও পেয়ে যাবেন। আপনার একাউন্টে $100 বা তার বেশি জমা হলে প্রত্যেক মাসের ২৩-২৫ তারিখের মধ্যে আপনার লোকাল ব্যাংককে টাকা প্রেরণ করা হবে। তখন ইচ্ছা করলেই আপনারা ব্যাংককে গিয়ে টাকা তুলে নিয়ে আসতে পারেন।


বিভিন্ন এড কোম্পানির এড ব্লগে বসিয়েঃ

বিভিন্ন এড কোম্পানির এড ব্লগে বসিয়ে আপনারা খুব সহজেই ইনকাম করতে পারবেন। এই ভাবে ইনকামের জন্য তেমন কোন শর্ত নেই। আপনি ইচ্ছা করলেই বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে কন্টেন্ট গুলো নিয়ে সেগুলো হালকা পাতলা এদিক সেদিক করে আপনার ব্লগে পাবলিশ করতে পারেন। তার জন্য আপনার ইউনিক আর্টিকেল হতে হবে এমন কোন কথা নেই। অনলাইনে বিভিন্ন ওয়েবসাইট আছে যারা বিভিন্ন  কোম্পানির কাছ থেকে টাকা নিয়ে থাকে তাদের প্রোডাক্ট প্রচারনার জন্য। যখন কোন ব্লগার সেই ওয়েবসাইটে একটা একাউন্ট তৈরি করে তখন তারা একটি এড কোড দেই সেটি নিয়ে এসে আপনার ব্লগ সাইটে রাখলেই সেখানে এড শো হওয়ার বিনিময়ে আপনি টাকা পাবেন। কিভাবে আপনারা এই ধরণের ওয়েবসাইটে একাউন্ট তৈরি করবেন এবং এড কোড নিয়ে এসে ব্লগে বসাবেন সে ব্যাপারে ইউটিউবে অনেক ভিডিও রয়েছে। আপনারা ইউটিউবে এই লিখে সার্চ দিবেন "how to earn money for blogger without adsense bangla tutorials" তাহলে অনেক অনেক ওয়েবসাইটের ভিডিও পেয়ে যাবেন।

এখন আসুন আমরা জানবো কিভাবে খুব দ্রুত উপায়ে এখান থেকে আয় করবঃ

তার আগে নিচের এই আর্টিকেলটি সময় করে পড়ে নিবেন। তাহলে ব্লগে বেশি বেশি ভিজিটর পাবেন যার ফলে আপনাদের ইনকামও বেশি হবে।

ব্লগে বা ওয়েবসাইটে ভিজিটর বাড়ানোর ১৫টি কার্যকরী উপায়।

  1. আপনার ব্লগে বেশি বেশি কন্টেন্ট পাবলিশ করুন 
  2. এমন কন্টেন্ট পাবলিশ করবেন যেগুলো মানুষে গুগলে সার্চ দেই
  3. প্রতিদিন ২ টা করে কন্টেন্ট পাবলিশ করবেন
  4. আপনাদের ব্লগারের কন্টেন্টগুলো ফেসবুক পেজ বা গ্রুপে শেয়ার করবেন
  5. আপনারা এভাবে ইনকাম করতে চাইলে অন্যের কন্টেন্ট কপি করে হালকা পরিবর্তন করে পাবলিশ করতে পারবেন।
  6. এমন এমন কন্টেন্ট লিখবেন যেগুলো মানুষ জানতে চায় বা পড়তে চায়
আজকের মত এখানেই বিদায় নিচ্ছি। যদি আর্টিকেলটি পড়ে ভালো লাগে তাহলে আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিন। আর আপনার যদি কোন কিছু জানার থাকে তাহলে উপরে আমাদের কন্টাক্ট পেজে গিয়ে ইমেইল করুন। আমি সাথে সাথে আপনার প্রতিউত্তর দিব। আর আমাদের পেজটি সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন। আপনি যতখন না পর্যন্ত আয় করতে পারছেন আমি ততক্ষণ পর্যন্ত আপনার সর্বাত্মক সাহায্য করবো ইনশাল্লাহ। 


Rea es:
শেয়ার করুন

Author:

আমি একজন অতি সামান্য মানুষ। পেশায় একজন লেখক,ব্লগার এবং ইউটিউবার। লেখালেখি করতে খুব ভালো লাগে। আমার এই সামান্য প্রয়াসের মাধ্যমে মানুষের কিছু শেখাতে পারা ও বিনোদন দেওয়ার মাধ্যমে আনন্দ খুঁজে পায়।

3 comments:

  1. masha Allah
    .vai.....onek kisu sikhlam.

    ReplyDelete
    Replies
    1. ধন্যবাদ কমেন্ট করার জন্য।

      Delete
  2. thanks for your valuable comment. please subscribe and stay with us to know our update post for every single day.

    ReplyDelete